Category Archives: আমার লেখালেখি

“তবুও বেঁচে আছি”

প্রকৃতির নিষ্ঠুরতা গ্রাস করে নিচ্ছে

ধীরে ধীরে আমার সর্বস্ব !

গ্রাস করে নিচ্ছে সকল মায়ার বাঁধন !

সংকুচিত হয়ে পড়ছে কৌতূহলে পরিধি।

ছিনিয়ে নিচ্ছে সরলতা-মাখা সেই ছোট্ট মন;

উদ্দীপনায় ভরা হৃদয়ের কম্পন।

ধ্বংস করে দিচ্ছে দৃষ্টির সীমানা।

কথা দিয়েছিলে

কথা দিয়েছিলে –
নিয়ে যাবে দুর পর্বতের চূড়ায়।
কথা দিয়েছিলে –
নিয়ে যাবে বিশুদ্ধ সমুদ্রের বিশালতায়;
স্নান করাবে জ্যোৎস্নার মলিনতায়;
বকুলের নির্জাসে মাখাবে হৃদয়।
দুর করে দেবে সমস্ত কষ্ট, সমস্ত ভয়।
কথা দিয়েছিলে !

আবেগহীন এক জড়

বললে সেদিন,
আমি নাকি আবেগহীন,
মনহীন এক জড়।
অচিরেই ভেঙ্গে দিতে পারি-
প্রেমের গড়া সে মন্দির।

আমি নাকি বুঝিনা!
আমি নাকি বুঝিনা – আনন্দ, বেদনা, যাতনা!
আমি নাকি দেখিনা!
আমি নাকি দেখিনা – হৃদয়ের গভীরে
বয়ে যাওয়া এক অশান্ত ঝড়!

বললে সেদিন,
আমি নাকি আবেগহীন,
মনহীন এক জড়।

তবে কি বলতে পারো ?
দিতে পারো এক ছোট্ট উত্তর ?
“আমার কেন কষ্ট হয় ?”
রাত নেমে এলে ঘুমের জগতে –
পাড়ি দিতে কেন ভয় ?
“আমার …
কেন কষ্ট হয় ?”
– এলিন (১৭/১১/২০১১)

শুধু তোমাকে নিয়ে

আজ আর বলবো না।
আজ আর বলবো না, হৃদয়ে জমে থাকা কষ্টের কথা।
আজ আর বলবো না।

আজ আর শোনাবো না,
হাঁসির আড়ালে লুকিয়ে থাকা কান্নার শব্দ।

আজ থাকনা পড়ে সেই সব পুরনো এক ঘেয়েমী কথাগুলো !
আজ নাই বা দেখলে হৃদয়ের সেই সব পুরনো ক্ষত,
যা প্রতিদিন দেখে যাও, গুনে যাও অবিরত।

ভয়

যদি বল আমায়,

ঐ দুর নীলিমায়,

ছড়িয়ে দেবো তোমার ঠোঁটের রং।

যদি বল একবার,

পৃথিবীর সব সুন্দর কেড়ে এনে দেবো।

যদি ভালো লাগে আকাশের ঐ চাঁদ,

পেড়ে এনে দেবো।

যদি চাও হৃদয়ের গহীন হতে এনে দেবো-

গাড় নীল।