Category Archives: টিউটোরিয়াল, টিপস ও ট্রিকস্

প্রাইভেট ব্রাউজিং – Anonymous Surfing

এখনকার প্রায় সকল ব্রাউজারেই এই private browsing mode দেয়া থাকে এবং সেগুলো প্রায় একই রকম কাজ করে থাকে। প্রাইভেট ব্রাউজিং এর সময়  ‘browsing history’, ‘browser cache’ এর ডাটা এবং ব্রাউজারে যে সকল বিষয় টাইপ করা হয়েছে সেই সব data ধরে রাখে না, ব্রাউজারটি বন্ধ করার সময় সকল ডাটা মুছে যায়। একেই Private Browsing বা Anonymous Surfing বলে।

যদি আপনি আপনার কম্পিউটারটি একাধিক ইউজারের সাথে শেয়ার করে থাকেন, তাহলে আপনার জন্য এই প্রাইভেট ব্রাউজিং অপশনটি ভালো হবে।

অনেকদিন পর আবার ‘দাবা’ নিয়ে টুকিটাকি এবং অনলাইনে দাবা খেলার জন্য ভালো একটি সাইট

আগে মানে অনেক আগে প্রচুর ‘দাবা’ খেলা হতো। আমার বন্ধুদের সাথে, ক্লাশম্যাটদের সাথে, কাকা/মামাদের সাথে, আমার আম্মুর সাথে এমনকি একা একাও। বলা যায় আমি ছিলাম দাবার একটা ফ্যান। তখন ধৈর্যও ছিল অনেক। মোটামুটি খুব একটা খারাপও খেলতাম না এই দাবাটা। এখনও মনে পড়ে, সাইফুল, সোহাগ, রাজীব এর কথা এমনকি আমার শাহাদাত কাকার কথাও। আমার সাথে দাবা খেলত প্রতিদিন অন্তত ১ গেম হলেও। আমি আমার স্যার (যিনি বাসাতে পড়াতেন) তাঁর সাথেও দাবা খেলতাম পড়ার শেষে।

কিন্তু আজ আর এমন ধৈর্যশক্তিও নেই আর মানুষিক অবস্থাও নেই। তাই দাবার মত এত সুন্দর একটি খেলা থেকে দূরে সরে যাচ্ছি।

কি মনে করে যেন আবার দাবার কথা মনে পড়তেই টুকটাক এটাকে নিয়ে নাড়াচাড়া করা পড়ছে। প্রথমে ধরলাম উইন্ডোজ ৭ এর ‘Chess Titans’ । অনেক সুন্দর ত্রিমাত্রিক এই Chess টা। এ্যানিমেটেডও। সাউন্ড কোয়ালিটিও খারাপ না। লেভেল আছে ১০ টা। এই লেভেল হলো এক্সপার্ট লেভেল। ডিফল্ট ছিল ৮। আমি খেলে তো অবাক। যদিও আগের মত চিন্তা করে টাইম নিয়ে খেলতে পারি না এখন। তারপরেও অবাক করে দিয়ে প্রকৃতি আমাকে জিতিয়ে দিল। 😀 অনেকটা ‘মাই-গড’ টাইপের খুশি হয়েছিলাম। 🙂  ফেইসবুকে ফ্রেন্ডের সাথে সেই খুশি শেয়ারও করে ফেললাম। নিচে স্ক্রিনশট এ আমি ‘সাদা’ নিয়ে খেলেছিলাম।

৩০০+ পোর্টেবল এপ্লিক্যাশান এখন একত্রে ‘Liberkey’ তে

এটা আমার পোর্টেবল এপ্লিকেশন নিয়ে দ্বিতীয় পোস্ট। পূর্বের পোস্টে আমি পোর্টেবল এপ্লিকেশনের উপর আলোচনা করেছিলাম। সেখানে বলেছিলাম পোর্টেবল এপ্লিকেশন কি এবং এর উপকারিতার উপর। এছাড়াও কোথা থেকে এই সকল পোর্টেবল এপ্লিকেশন সংগ্রহ করা যাবে তাও আলোচনা করেছিলাম।

আজ আমি আলোচনা করবো ‘পোর্টেবল এপ্লিকেশন স্যুট’ নিয়ে। এই ব্যাপারে আমি কিছুটা আইডিয়া পেয়েছিলাম ‘টেকটিউসন’ থেকে। সেখানে বিভিন্ন এপ্লিকেশন স্যুট নিয়ে সংক্ষিপ্তাকারে একটি পোস্ট ছিল। আমি তা থেকে একটি স্যুট নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। স্যুটটা আমার খুবই পছন্দ হয়েছে। নাম ‘লিবারকি’। এর গ্রাফিক্সটাও চমৎকার। এনিম্যাট করে। ব্যবহার করতে দারুণ লাগে।

বাংলা ওয়েবসাইট মোবাইলে ভিজিট করার নিয়ম

সম্প্রতি আমি আমার এই ব্লগটি মানে ‘এলিনের ভুবন’ এর মোবাইল ভার্সন বেড় করার কথা ভাবছি, আর এই জন্যই এই পোষ্টটি।
আজকাল প্রায় অনেক ওয়েবসাইটই বাংলাতে রয়েছে। আর অনেকেই সেই সকল ওয়েবসাইট মোবাইলে পড়তে চান বা পড়ার প্রয়োজন পড়ে। যেমন আপনি গ্রামের বাড়িতে গেলেন প্রায় ১৫ দিনের জন্য। পিসি আর নেট ছাড়া খুবই খারাপ লাগছে। সাইবার ক্যাফেও পাচ্ছেন না। কিন্তু হাতের মোবাইল রয়েছে যেটা জাভা সাপোর্টে-ড এবং ইন্টারনেট সেটআপ করা আছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে আপনার পছন্দের প্রায় সকল ব্লগ বা ফোরামই হচ্ছে বাংলাতে। তখন কি করবেন ?

Firefox এর হারিয়ে যাওয়া bookmarks ফেরত পাওয়া

অনেক সময় দেখা যায় ফায়ারফক্সের বুকমার্ক মুছে যায়, কিংবা নতুন কোন নষ্ট বুকমার্কের সাথে রিপ্লেস হয়ে যায়। তখন কি করবেন!? হ্যা, সেই বুকমার্ক আবার পুনরায় ফেরত পেতে পারেন। ফায়ারফক্স বুকমার্ক অটোমেটিক ব্যাকআপ করে রাখে ভিন্ন স্থানে। সেখান থেকে আবার সেই হারিয়ে যাওয়া বুকমার্ক রিকোভার করা যাবে।

১. প্রথমে system এর C drive ( যেখানে উইন্ডোজ ইনস্টল করা আছে ) এ যেতে হবে।
২. তারপর যেতে হবে “C:\Documents and Settings\your account name\Application Data\Mozilla\Firefox\Profiles\”.

৩. profiles folder এর অধীনে আপনি awrvfkuo.default এই ধরনের একটা ফোল্ডার দেখতে পাবেন। এই ফোল্ডারটি একেকবার একেক নামে থাকতে পারে।
৪. ডাবল ক্লিক করে খুলতে হবে awrvfkuo.default ফোল্ডারটি এবং আপনি তখন এর ভিতরে আরেকটি ফোল্ডার দেখতে পাবেন “bookmarkbackups” নামে। এখানেই ফায়ারফক্স তার বুকমার্কের ব্যাকআপ রাখে। বুকমার্কের ব্যাকআপগুলি তারিখ অনুযায়ী থাকে।

৫. এখন সেখান থেকে একদম latest bookmarks টি কপি করতে হবে এবং সেটিকে অন্য কোথাও রেখে তার নাম পরিবর্তন করে “bookmarks.html” করতে হবে।
৬. নতুন পরিবর্তিত বুকমার্কটি এবার রিস্টোর করলেই ব্যবহার করতে পারবেন।

উৎস : কম্পিটার ফ্রি টিপস
সম্পাদনা ও অনুবাদ : এলিন (এডমিন) ২০০৮