Tag Archives: কবিতা

“তবুও বেঁচে আছি”

প্রকৃতির নিষ্ঠুরতা গ্রাস করে নিচ্ছে

ধীরে ধীরে আমার সর্বস্ব !

গ্রাস করে নিচ্ছে সকল মায়ার বাঁধন !

সংকুচিত হয়ে পড়ছে কৌতূহলে পরিধি।

ছিনিয়ে নিচ্ছে সরলতা-মাখা সেই ছোট্ট মন;

উদ্দীপনায় ভরা হৃদয়ের কম্পন।

ধ্বংস করে দিচ্ছে দৃষ্টির সীমানা।

ম্লান হয়ে যাচ্ছে সমস্ত আনন্দ, সমস্ত বেদনা।

তবু বেঁচে আছি !

বেঁচে আছি এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে !

বেঁচে আছি, বেঁচে আছি – প্রকৃতির সাথে।

আর তো কিছু করার নাই !

শুধু বেঁচে আছি, বেঁচে আছি-

বাঁচতে হবে তাই।

– এলিন (২০/০৩/২০১২ ইং)

শুধু তোমাকে নিয়ে

আজ আর বলবো না।
আজ আর বলবো না, হৃদয়ে জমে থাকা কষ্টের কথা।
আজ আর বলবো না।

আজ আর শোনাবো না,
হাঁসির আড়ালে লুকিয়ে থাকা কান্নার শব্দ।

আজ থাকনা পড়ে সেই সব পুরনো এক ঘেয়েমী কথাগুলো !
আজ নাই বা দেখলে হৃদয়ের সেই সব পুরনো ক্ষত,
যা প্রতিদিন দেখে যাও, গুনে যাও অবিরত।

আজ নাইবা নিলে স্বাদ অশ্রুর তিক্ততা।
আজ আর বলবো না,
আজ আর বলবো না হৃদয়ের জমে থাকা সেই কষ্টের কথা।

আজ আর বলবো না, রাতের নীরবতা কি বলে।
দেখাবো না, চাঁদ কাকে সঙ্গ দিয়ে চলে।
আজ তারার রাজ্যে নেবো না তোমায়।
দেখাবো না আমার এই দার্শনিকতা।
ভয় নেই !
আজ আর বলবো না হৃদয়ের জমে থাকা সেই পুরনো কষ্টের কথা।
আজ আর বলবো না !

আজ শুধু শুনে যাবো, নীরবতা কি বলে।
আজ শুধু দেখে যাবো, তোমার মায়াভরা চোখের কম্পন।
আজ সব হবে, অনুভবে, কোন কথা ছাড়া –
আজ গুনে যাবো, গুনে যাবো তোমার প্রতিটি হৃৎস্পন্দন।
আজ তৃষ্ণা মেটাবো তোমার অশ্রু পানে,
নীরবতা কাটাবো হৃদকম্পনে।
ঘ্রাণ নেবো তোমার চুলের।
কি দরকার !
কি দরকার অযথা – হাসনাহেনা, জুঁই, সিউলী ফুলের !

আজ আর দেখাবো না হৃদয়ের অস্থিরতা।
আজ আর লিখবো না !
লিখবো না নিজেকে নিয়ে সেই একঘেয়েমি কবিতা।

আজ সব হবে অনুভবে –
যাবো তোমার মাঝে হারিয়ে,
আজ পুরো রাতটাই, আজ পুরো রাতটাই সব হবে তাই –
শুধু তোমাকে নিয়ে !

– এলিন (১৫/১২/২০১১, রাত – ১.০৫ টা)

ভয়

যদি বল আমায়,

ঐ দুর নীলিমায়,

ছড়িয়ে দেবো তোমার ঠোঁটের রং।

যদি বল একবার,

পৃথিবীর সব সুন্দর কেড়ে এনে দেবো।

যদি ভালো লাগে আকাশের ঐ চাঁদ,

পেড়ে এনে দেবো।

যদি চাও হৃদয়ের গহীন হতে এনে দেবো-

গাড় নীল।

গেঁথে দেবো দৃষ্টিতে পৃথিবীর

সমগ্র বিস্ময়, অনাবিল-

সুন্দর।

দিতে পারি হৃদয়ের স্পন্দন-

যদি ভালো লাগে তোমার।

দিতে পারি এ’চোখের সবটুকু ক্রন্দন-

যদি বল একবার।

শুধু পারবোনা-

শুধু পারবোনা সরাতে

তোমার-আমার মাঝের এ’ ব্যবধানটুকু।

থাকনা এ দূরত্ব!

এতো কাছে আসার তো প্রয়োজন নাই!

আমি ভয় পাই!

ভয় পাই! যেটুকু পেয়েছি

যদি ওটুকুও হারাই!

                                    -এলিন (২৩/১১/২০১১)

ক্লান্ত আমি

জানি না কি চাই আমি
কিসে হবো শান্ত;
অশান্ত হৃদয় আমার
বেদনায় আক্রান্ত।
ছটফট করে মন
অকারণ অস্থির
পারিনা রাখতে মাথা
দু’মিনিট স্থির।
এটুকু হৃদয় মোর
জানিনা কি চায়!
যত কিছু দেই তারে
তবুও কাঁদায়।
জানি না কি চাই আমি
নাকি সবই ভ্রান্ত
জানিনা কি পেলে আমি
হবো চীর-শান্ত।
মনে হয় মৃত্যুই দিতে পারে শান্তি-
আর কিছুই চাইনা-
আমি বড় ক্লান্ত।
                          – এলিন

“অদ্ভুদ তুমি”

তোমায় কেন জানি বুঝেও বুঝিনা!

এতো কিছু বুঝি,

এতো কিছু জানি,

বলে ফেলি অতিতের কত ঘটনা-

শুধু তোমায় কেন জানি, বুঝেও বুঝিনা!

কখনও বা তুমি শান্ত অতি,

ধীরে ধীরে বয়ে যাওয়া কোন এক নদী;

কখনও বা উত্তাল অশান্ত ঢেউ,

অতি চেনা, সুনয়না, আমারই কেউ।

কখনও বা দ্বিধাহীন ছোট্ট শিশু,

কখনও অস্থীর, আনমনা;

… তোমায় চিনেও চিনি না,

… কেন জানি চিনতে পারি না!

                                    -এলিন  [ এপ্রিল-২০১০]