Category Archives: বিজ্ঞানজগৎ

Huge new prime number discovered

Los Angeles, Sep 28 (BBC Online) – Mathematicians in California could be in line for a $100,000 prize (£54,000) for finding a new prime number which has 13 million digits.

Prime numbers can be divided only by themselves and one.

The prize was set up by the Electronic Frontier Foundation to promote co-operative computing on the Internet.

Edson Smith, a mathemagician at the University of California Los Angeles installed software on to the department’s computers from the Great Internet Mersenne Prime Search (Gimps) to search for the new prime. Gimps is an ad-hoc network, like that PS3 Folding@home thing. Around 100,000 PCs worked together to perform 29 trillion calculations and locate a prime number that’s 12,978,189 digits long. I’d post the number but it would take you weeks to read it.

The team from the University of California at Los Angeles (UCLA) found the new number by linking 75 computers and harnessing their unused power.

This enabled them to perform the enormous number of calculations needed to find and verify a new prime.

Thousands of people around the world linked the powers of their personal computers in the search for a higher “Mersenne” prime number – named after 17th-Century French mathematician Marin Mersenne.

Mersenne primes are expressed as two to the power of P, minus one – with P being itself a prime number.

Edson Smith, the leader of the winning UCLA team, told the Associated Press news agency: “We’re delighted. Now we’re looking for the next one, despite the odds.”

Source : bdnews24 (2008)

Loneliness ‘makes you cold’

Lonely woman

Turning up the thermometer could lighten your m

Loneliness and coldness are often associated in everyday language, but psychologists have found that social isolation does make people feel cold.

The University of Toronto team found people feeling excluded said a room was colder than those feeling included.

And people who felt left out also chose comforting hot soup, rather than an apple or soft drink.

A UK psychologist said the findings could help people feeling isolated, particularly in the winter months.

অনলাইনে চিকিৎসার খোঁজ খবর

১২ মাসে তেরশ’ রোগে ভোগে এদেশের মানুষ। চলতি বন্যায় দেশ জুড়ে কলেরা আর ডায়রিয়া, কনজাংটিভাইটিস (চোখ ওঠা) এর প্রকোপ। জীবন বাঁচাতে ডাক্তার আর হাসপাতাল প্রতিদিনের সঙ্গী। কিন্তু কোথায় কার কাছে যাবো এই নিয়ে চিন্তায় অস্থির অনেকেই। চিকিৎসা সেবা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অনলাইনে সঙ্গী করে নিন স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবসাইটগুলো। হয়তো সহজ সমাধান পেয়েও যেতে পারেন।

বিষণ্নতা থেকে হার্ট অ্যাটাক

ষাটের ঊর্ধ্বে দুজনের বয়স। তাঁদের দুজনের ভালোবাসায় তরুণেরাও চমকে উঠবে। একদিন বুড়ো পেয়ে গেল শোকের তীব্র আঘাত। তাঁ প্রিয়জন মারা গেল হার্ট অ্যাটাকে। এক সপ্তাহ পার হতে না হতে তিনিও চলে গেলেন। এটি গল্প নয়, সত্যি। সঙ্গীর মৃত্যু যেন তাঁর বুকে সেলের আঘাতের চেয়েও বেশী।

এখন বিজ্ঞানীদের ধরনার পরিবর্তন ঘটেছে। দুঃখ-বেদনা-শোক কিংবা দুঃসংবাদও দায়ী হৃদরোগের জন্য, তা জানা গেছে। প্রিয়জন বিয়োগ, বড় কোন শোক, মানষিক চাপ ও বিষণ্নতা কিংবা প্রাকৃতিক দুর্যোগও হতে পারে হার্ট অ্যাটাকের কারণ। এ নিয়ে মনোরোগবিজ্ঞানীরা স্বাস্থ্য ও রোগের সঙ্গে মনের প্রভাব নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

নিজ সন্তানের লাশ কাঁধে বহন করা, কিংবা প্রিয়জনের মৃতদেহ সমাহিত করার মতো শোক আর কি আছে। এছাড়া মানুষের নানারকম দুঃখ চাপ ফেলে মনের উপর প্রচন্ডভাবে। ফলে হার্ট অ্যাটাক তারপরে হয়তোবা মৃত্যু।

কেন এমন হয়? বিজ্ঞানীরা দেখেছেন মারাত্মক শোক-দুঃখ অনেকের শরীরে কিছু হরমনের নিঃসরন বাড়িয়ে দেয়। বিশেষ করে ‘অ্যাড্রিনালিন হরমোন’ ও ‘করটিসল স্ট্রেস হরমোন’ দ্রুত বেড়ে যায় রক্তে। সঙ্গে সঙ্গে হৃদস্পন্দন বেড়ে যায়। রক্তচাপ প্রচন্ড বাড়ে। পেশীগুলো টানটান হয়। প্রতিরোধ কোষগুলোও উদ্দিপ্ত হয়ে উঠে। চারদিকের রক্ত চলে আসে মাংসপেশীতে। ফলে রক্তের ঘনত্ব বাড়ে। হঠাৎ জমাট বেঁধে যায়। এছাড়া বিভিন্ন ঝুঁকি উপাদানের কারণে হৃদযন্ত্র এবং এর রক্তনালীতে ক্ষয় হতে থাকে। সঙ্গে চর্বিও জমতে থাকে ধমণীর দেয়ালে। এতে রক্ত চলাচলের পথ হয় সরু। ধমনি শক্ত হয়ে গঠন করে বিপজ্জনক ‘এথারোসক্লেরোসিস’, তাতেই অঘটন। এই চর্বি জমা, সরু রক্তনালী আর জমাট রক্ত মিলেই হয় হার্ট অ্যাটাক। তাতেও বেঁচে গেলে, তার পরও যদি বেড়ে যায় শোক-বেদনা-বিয়োগ, বছর বছরই লেগে থাকে বেদনার চিহ্ন- বেড়ে যাবে আরও স্টেস হরমোন। হৃদযন্ত্রে ঘটবে বড় বিপত্তি। হরমোনের প্রভাবে রক্তনালী সংকুচিত হয়। ঘটে হার্ট অ্যাটাক। কারণ, শোক-দুশ্চিন্তা-হতাশা প্রভৃতি নেতিবাচক অনুভুতিই হৃদপিন্ডের পেশীতে রক্ত চলাচল কমিয়ে প্রথমে ‘অ্যানজাইনা’, পরে হার্ট অ্যাটাক ঘটায়। তাই শোক-দুঃখ-বিষণ্নতাকে ঠেলতে হবে আড়ালে। মনের চাপ কমাতে হবে হৃদয়ের কোঠায়। ঝেড়ে ফেলতে হবে বিষণ্নতা। মানিয়ে নিতে হবে অতি সহজে, বাস্তবতায়।

উৎস : প্রথম আলো

ডা. এস, কে অপু

হৃদরোগবিশেষজ্ঞ

ময়মনসিংহ চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়

আপনি কি বিষণ্নতায় ভুগছেন ? যদি জানতে চান নিচের লিংটিতে ক্লিক করুন :

বিষণ্নতা পরিক্ষা উৎস : এলিন (এডমিন)