ত্রিশ পেরিয়েও উজ্জ্বল যাঁরা

কুঁড়িয়োকো হ্যায় জামানা-এই তত্ত্ব এখন মাঠে মারার যোগাড়। বলিউডের শীর্ষ নায়িকাদের সিংহভাগের বয়স ত্রিশ ছাড়িয়েছে। তবু তারা ক্ষমতায়-জনপ্রিয়তায় রয়েছেন সেরা অবস্থানে। বয়সে ত্রিশের কোঠা পেরোনো এমনই ৯ শীর্ষ বলিউড অভিনেত্রীর হালফিল অবস্থা জানাতে আমাদের এই বিশেষ প্রতিবেদন।

ঐশ্বরিয়া রাই
জন্ম : ১ নভেম্বর, ১৯৭৩ (৩৪)

চলতি বছর ‘বচ্চন বহু’র সাফল্য ফিফটি ফিফটি। ‘যোধা আকবর’ ব্লক বাস্টার হিট। ‘সারকার রাজ’ চলেছে কোনো রকম। খ্যাতি ও গরীমায় অ্যাশ তারকালোকে জ্বলজ্বলে অবস্থানে থাকলেও মাঠ পর্যায়ে তার দৌড়ের গতি কিছুটা স্তিমিত। হলিউড, বলিউড আর তামিল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি-তিন দিকে বাহু মেললেও সাফল্যের খতিয়ান শূন্যের কাছাকাছি।

অ্যাশকে পেলেই ফটোগ্রাফাররা যেভাবে হামলে পড়েন নির্মাতাদের মধ্যে তার ছিটেফোঁটা ত্রস্তভাবও নেই। কিন্তু বচ্চন পরিবারের ঘরণী হওয়ার সুবাদে পাদ-প্রদীপের আলো ২৪ ঘন্টাই তার উপরে। সেই সঙ্গে কান উৎসবের মতো জায়গায় অ্যাশের আবেদনের কথা তো আর নতুন করে বলার কিছু নেই।

প্রীতি জিনতা
জন্ম : ৩১ জানুয়ারি, ১৯৭৫ (৩৩)

ক্রমশ বিস্মৃতির অতলে হারিয়ে যাচ্ছেন প্রীতি। ছবিঘরে শেষ কবে প্রীতি অভিনীত ছবি এসেছে তা কেউ মনে করতে পারবেন না। আগামীতে তার এমন কোনো ছবিও আসছেনা যা তাকে আবার লাইম লাইটে নিয়ে আসতে পারে। এক হিসেবে অবশ্য প্রীতি লাইম লাইটেই আছেন।

আইপিএল, ব্র্যান্ড এন্ডোর্সমেন্ট ইত্যাদি নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে তার যে মাতামাতি এর সিকি ভাগ সময়ও যদি তিনি বলিউডকে দিতেন তাহলেও পূর্ব-অবস্থান ধরে রাখা প্রীতির পক্ষে অসম্ভব কোনো ব্যাপার ছিল না বলেই অনেক বোদ্ধারা মনে করেন। ক্রোড়পতি প্রেমিক নেস ওয়াদিয়াহ্কে পেয়ে দর্শকদের কি বেমালুম ভুলে গেলেন প্রীতি জিনতা?

শিল্পা শেঠি
জন্ম : ৮ জুন, ১৯৭৫ (৩৩)

কাজ না করেও বছরভর আলোচনায় থাকার মূর্তিমান উদাহরণ শিল্পা শেঠি। বছর খানেক পূর্বে কোনো এক নায়ক-প্রধান ছবিতে ‘আপনে’ তার চেহারা খান কয়েক দৃশ্যে দেখা যাওয়ার পর আবার তিনি লাপাত্তা। তবে বড় পর্দায় না থাকলেও ছোট পর্দায় তিনি আছেন বহাল তরিয়তে।

এবারের ‘বিগ বস’ উপস্থাপনার দায়িত্ব যে তার কাঁধে! ‘বিগ ব্রাদার’ তাকে ‘স্মল’ তারকায় রূপান্তর করলো কি-না সেই প্রশ্ন এড়িয়ে বলা যায় ওয়ার্ল্ড ট্যুর, যোগা ওয়ার্কশপ, রাজ কুন্দরকে বিয়ের ঘোষণা, প্রযোজনায় আসি আসি ভাব- সব মিলিয়ে শিল্পার পর্দার বাইরের কর্মকান্ড একেবারে ‘কম’ নয়।

বিপাসা বসু
জন্ম : ৭ জানুয়ারি, ১৯৭৭ (৩১)

বছরের শুরুর দিকে বেশ বড় রকমের একটা ‘গোল’ হজম করেছেন বিপাশা। এরপর কেবল গোল দেওয়ার পালা তার। বছরের মাঝামাঝি বিরাট মাপের এক হিট ‘রেস’। আর এইতো গেল মাসে আরেক হিট ‘বাচনায়ে হাসিনো’। দুই হিট ছবির দৌলতে বিপাশা এখন চরম ‘হট’। প্রেমিক জন আব্রাহামের সঙ্গে সম্পর্কটা আগের মতো নেই বলেই বাজারে জোর গুজব। নতুন নাম হিসেবে বারবার আসছেন একজনই- যুবরাজ সিং।

রাণী মুখার্জি
জন্ম : ২১ মার্চ, ১৯৭৮ (৩০)

পারলে কেঁদেই ফেলেন রাণী। লোকে তাকে দেখলেই বলছে, ‘ঐ যায় যশরাজের নায়িকা’। সম্রাজ্ঞীর মান-মর্যাদা যেন ধূলায় লুটোপুটি খাচ্ছে। লোকের আর দোষ কী! রাণীর শেষ তিনটা ছবির, তিনটাই ঝাড়া ফ্লপ। ‘লাগা চুনারি ম্যায় দাগ’, ‘তারা রাম পাম’, ‘থোড়া পেয়ার থোড়া ম্যাজিক’-তিনটাই যশরাজ ব্যানারের ছবি। আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জন ডালপালা পেলে এখন মহীরূহ-রূপ ধারণ করেছে। এর শেষ কোথায় তা হয়তো সময়ই বলে দেবে। কিন্তু দর্শক-নির্মাতাদের জিজ্ঞাসা একটাই- রাণীর ব্যর্থতার শেষ কোথায়?

মল্লিকা শেরাওয়াত
জন্ম : ২৪ অক্টোবর, ১৯৭৬ (৩১)

‘মার্ডার’কন্যা মল্লিকা শেরাওয়াতের শরীরী আবেদনকে খুন করার জন্য যেন উঠে-পড়ে লেগেছেন নির্মাতারা। চলতি বছর মুক্তি পেয়েছে তার দু’টি ছবি- ‘মান গায়ে মুঘল-এ-আজম’ এবং ‘আগলি আউর পাগলী’। দু’টিই চূড়ান্ত কমেডি ছবি। দুই ছবিতে মল্লিকার আবেদনময়ী ইমেজ খান খান।

নতুন ভাবমূর্তি তৈরি কমেডি অভিনেত্রীর। তবু যা-হোক এক রকমের ক্যারিয়ার যে চাঙ্গা রাখতে পেরেছেন, তা-ই বা পারছেন কয় জনে! বলিউড ছাড়াও বরাবর তার নজর হলিউডের দিকে। ক্যারিয়ারের স্বার্থে আপাতত ব্যক্তি জীবনে দ্বিতীয় যে কারো অনুপ্রেবেশ নিষিদ্ধ করেছেন মল্লিকা শেরাওয়াত।

সুস্মিতা সেন
জন্ম : ১৯ নভেম্বর, ১৯৭৫ (৩২)

চলচ্চিত্র প্রযোজনা, স্পা ব্যবসা, ব্যান্ড এ্যান্ডার্সমেন্ট- ব্যস্ততার বহর যতো লম্বাই দেখা যাক না কেন সুস্মিতা সেন তার মূল পরিচয় কিন্তু এক প্রকার হারিয়েই ফেলছেন। অভিনেত্রী সুস্মিতাকে কে চাইছে না; দর্শক না-কি নির্মাতা? উত্তর যাই-ই হোক, নায়িকাদের ইঁদুর দৌড়ে বহু আগেই প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে পড়েছেন সুস্মিতা। এখন তারকালোক থেকে খসে পড়ার অপো। বহুদিন ধরে সাবেক বিশ্বসুন্দরীর ব্যক্তি জীবনের প্রতিও আগ্রই হারিয়ে ফেলেছে মিডিয়া। বেচারী!

লারা দত্ত
জন্ম : ১৬ এপ্রিল, ১৯৭৮ (৩০)

গেল বছর ডেভিড ধাওয়ানের ‘পার্টনার’ হিট হওয়ার পর থেকে বাজার ভীষণ চড়া লারা দত্তের। আতিপাতি করে যখন কেউ একটা হিটের দেখা পাচ্ছেন না তখন একখানা ব্লক বাস্টার হিটের গরম এমন না হলে চলে! ‘পার্টনার’-এর পর পারিশ্রমিক এক লাফে দ্বিগুণ করে ফেলেছেন লারা-এমন গুজব বাজারে অনেক দিন ধরেই। কিন্তু লারা দত্তের দর্শক চাহিদা আসলে কতোখানি- তা খতিয়ে দেখার আপাতত কোনো সুযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। কারণ সিনেমা হলে তার নতুন কোনো ছবি নেই।

বিদ্যা বালান
জন্ম : ১ জানুয়ারি, ১৯৭৮ (৩০)

সদ্য ত্রিশে পা দিয়েছেন বিদ্যা বালান। ক্যারিয়ারের হিসেবে বয়সটা যেন একটু বেশিই পয়মন্ত এই নায়িকার। তাই শহিদ কাপুরের মতো নায়কদের সাথে জুটি বাধলে বিদ্যাকে দু’চার কথা শুনতেই হয়। কিন্তু আবার দেখুন, বক্স অফিসের রায় পুরো বিপরীত।

সমালোচকদের ধারণাকে ভ্রান্ত করে দিয়ে ‘কিসমত কানেকশন’ পর্যন্ত হিট। গত বছর নায়িকাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি হিট ক্যাটরিনা কাইফ আর বিদ্যা বালানের। এ বছর ‘হাল্লা বোল’ টাই যা একটু বেকায়দায় ফেলে দিয়েছে বিদ্যাকে। বয়স যাই হোক, বিদ্যার আসল সূচনা হচ্ছে কিন্তু এই ত্রিশ থেকেই।

উৎস : বাংলাদেশ ইনফো (সেপ্টম্বার, ২০০৮)

পোস্টটি শেয়ার করুন :