Tag Archives: jokes

আমার ডেভেলপ করা এন্ড্রয়েড এ্যাপ : ‘বাংলা জোকস’

আমার প্রায় কৌতুকের প্রয়োজন হয়। নিজের এবং অন্যকে খুশি রাখার জন্য। কিন্তু সব সময় সব কৌতুক মনে থাকেনা। যদি এমন হতো কৌতুকগুলো সব সময় আমার হাতের কাছে থাকে কেমন হয়! অমনি মনে পড়ে গেলো স্মার্ট-ফোনটির কথা। নেটে খুঁজেও তেমন ভালো এ্যাপ পেলাম না। একটি পেয়েছিলাম কিন্তু সেখানে কৌতুকের সংখ্যা খুবই কম। আমার প্রয়োজন সকল কৌতুক থাকে এমন এ্যাপ। হোক কিছু সাইজে বড় এবং স্লো। সমস্যা নেই। প্রয়োজনের সময় এসব মেনে নেয়া যায়।

অমনি ঠিক করলাম নিজেই একটি এ্যাপ ডেভেলপ করি। এতে প্রাকটিস হবে আর কৌতুকও পেয়ে যাবো। বিডি-জোকস এর ভালোলাগা প্রায় কমবেশি সকল কৌতুকই নিয়ে নিলাম এ্যাপটির জন্য। এবং অপর একটি সাইট ধরলাম প্রায় শেষও করলাম। এখন কয়েক’শ বাকি রয়েছে কৌতুক। এবং সব শেষে যে এ্যাপটি পছন্দ হয়েছিল তারও ভালো লাগা কমবেশি সব এ্যাপ নিয়ে নিলাম। নিয়ে নিলাম মানে ডাটা-এন্ট্রি করা শুরু করে দিলাম।

বাংলঅ জোকস

বাংলা জোকস

স্বামী ও স্ত্রী : টেক্সট ম্যাসেজ কনফার্মেশান

husband-wife

স্বামীর বাসাতে ফিরতে রাত হবে তাই স্ত্রীকে ফোনে টেক্সট ম্যাসেজ দিলো :
“ওগো, আমার বাসাতে ফিরতে রাত হবে। যদি পারো তাহলে আমার কিছু ময়লা কাপড় পড়ে রয়েছে সেগুলো ধুয়ে ফেলো এবং রাতে আমার পছন্দের খাবারটি তৈরি করতে পারো কি না একটু চেষ্টা করে দেখো।“

স্ত্রীর কাছ থেকে কোন রিপ্লাই না পেয়ে, স্বামী আরেকটি টেক্সট ম্যাসেজ দিলো :
“ও, একটি কথা তো বলতে ভুলেই গিয়েছিলাম, এই মাসে আমার বেতন বেড়েছে যা আমি পেতে যাচ্ছি মাসের শেষের দিকেই। ভাবছি এইবার তোমাকে একটি নতুন গাড়ি কিনেই দেবো।“

স্ত্রী সাথে সাথেই এইবার রিপ্লাই দিলো :
“O My God !! সত্যিই ?”

স্বামীর রিপ্লাই :
“না মানে আমি দেখছিলাম তুমি আমার প্রথম ম্যাসেজটি পেয়েছ কিনা।“

অনুবাদ : এলিন ২০১২
কার্টুন : গুগল

সেটা হচ্ছে আমার মুখ

এক শহরের ইমাম, পাদ্রী, আর রাবাই একবার বেরিয়েছে ঘুরতে।

ঘুরতে ঘুরতে তারা তিনজন শহরের পাশে একটা অপূর্ব নির্জন লেকের সামনে হাজির হলো। যেহেতু ধারেকাছে কেউ নেই, কিছুক্ষণ আলাপ করে তারা সিদ্ধান্তে এলো, তারা কাপড়চোপড় খুলে পানিতে নামবে।

যে-ই ভাবা সেই কাজ, একটা ঝোপের আড়ালে কাপড় খুলে রেখে তিনজনই পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়লো।

ঘন্টাখানেক পানিতে হুটোপুটি করে, এই মুক্তির স্বাদ উপভোগ করে তিন ধর্মযাজক আবার তীরে উঠে এলো। তারা ঝোপের দিকে এগোতে যাবে, এমন সময় শহরের একদল নারীপুরুষ সেখানে এসে হাজির। কী করা উচিত, বুঝতে না পেরে ইমাম আর পাদ্রী তাদের নাভির নিচটা দুহাতে ঢেকে ফেললেন, আর রাবাই ঢাকলেন তার মুখ। তারপর তিনজনই ভোঁ দৌড় দিলেন ঝোপের আড়ালে।

লোকজন চলে যাওয়ার পর পাদ্রী আর ইমাম রাবাইকে জিজ্ঞেস করলেন, কেন তিনি তাঁদের মতো লজ্জাস্থান না ঢেকে মুখ ঢেকে ফেলেছিলেন।

রাবাই নির্বিকার মুখে বললেন, ‘আপনাদের জমায়েতে কী হয়, আমি বলতে পারবো না, কিন্তু আমার জমায়েতের লোক আমাকে যা দেখে চিনে ফেলবে, সেটা হচ্ছে আমার মুখ।’

উৎস : বিডিজোকস ২০০৮

কিছু জোকস নিয়ে এলাম…

‘মহীলার এ্যাপেন্ডিসাইটিসের অপারেশান’

এক মহীলা বাসে সীট না পেয়ে বলছে – ‘আমাকে যদি সীটে বসতে দেন, তাহলে আমি দেখাবো কোথায় আমার এপেন্ডিসাইটিসের অপারেশানটা হয়েছিল।’

সাথে সাথে কিছু ছেলে সীটে জায়গা করে দিল। মহিলাটি জানালার পাশে বসে আছে। এবার ছেলেটি বলছে – ‘এখন দেখাবেন কি, আপনার অপারেশানটি কোথায় হয়েছিল?’

বাসটি একটি হাসপাতালের কাছে এলেই, মহীলাটি সাথে সাথে বলে উঠলো- ‘ঐ তো, ঐখানেই হয়েছিল’।

‘স্বার্গে ক্রিকেট খেলা’

– হ্যারে, স্বর্গে কি ক্রিকেট খেলা হয়?

– অবশ্যই হয়। আমি স্বপ্নে গতকালই তো দেখলাম, স্বর্গে ক্রিকেট খেলা হচ্ছে। আর আগামীকালই তো তুই ব্যাট করছিস।

‘ইন্ডয়াতে যা হয় নি তাই আমেরিকাতে হলো’

( আমেরিকাতে কার্তিকদা ) কার্তিকদা বলছে, ‘ইন্ডিয়াতে যা হই নি আমেরিকাতে তাই হলো’।

– কি হলো!?

– এক আমেরিকান মেয়ের কাছে গেলাম, হাত ধরলাম, আর ইন্ডিয়াতে যা হই নি তাই হলো।

– কি হলো আর‍!?

– মেয়েটি কিছুই বলল না। তারপর আমি মেয়েটির সাথে তার বাসায় গেলাম। আর ইন্ডিয়াতে যা হই নি তাই হলো।

– কি, কি হলো…?

– মেয়েটির বাসায় গিয়ে তার বেডরুমে গেলাম। আর ইন্ডিয়াতে যা হই নি তাই হলো।

– আর কি হলো, বলো না?

– মেয়েটি কিছুই বলল না। তার স্বামী এলো। আর….

– আর? আর কি হলো!?

– আর কি হবে? ইন্ডিয়াতে যা হয়, তাই হলো। ইচ্ছামতো পেটালো।

‘মিলিটারির সাহস পরীক্ষা’

মিলিটারিদের সাহস পরীক্ষা করছে তাদের প্রধান। এক মিলিটারিকে দুরে দাঁড় করিয়ে রেখে মাথায় লেবু রেখে বন্দুক দিয়ে সেই লেবুটিকে গুলি করল। মিলিটারিটি একদম নড়ল না। লেবুটি ফেঁটে গিয়ে তার শার্টটিকে নষ্ট করে দিল।

তাদের প্রধান তাকে ৫০ টাকা দিয়ে বলছে- ‘সাবাস, এই টাকা দিয়ে সাবান কিনে শার্টটি ধুঁয়ে নিও’।

মিলিটারিটি বলল – ‘তাহলে আরোও ৫০ টাকা দিন, প্যান্টটিও ধুঁতে হবে’।

( এই লেখা আমি কয়েকদিন আগে টিভিতে ‘মিরাক্কেল’ এ শুনেছিলাম। আজ যতটুকু সম্ভব লিখেছি। হয়তো বা গুঁছিয়ে লেখা হয় নি। তবুও শেয়ার করতে ইচ্ছা হলো। )

লেখা : এলিন (২০০৯)

উৎস : টিভিতে শুনেছি

কৌতুক

ডাক্তার ও উকিল
ডাক্তার: ডাক্তার দেখতে পেলেই সবাই যেখানে সেখানে পরামর্শ চায়। বলতে পারেন কী করে এসব লোকর হাত থেকে বাঁচা যায়?
উকিল: খুব সহজ। চেম্বার গিয়ে তাদের ঠিকানায় পরামর্শ ফি এর বিল পাঠিয়ে দেবেন।
ডাক্তার: ঠিকই বলেছেন আমি এখন থেকে তাই করব। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
উকিল: এখন আমার পরামর্শ ফি টা দিয়ে দিন।