Category Archives: ভিন্ন-লেখা

বিশ্বের সর্বাধিক দেখাকৃত যে ছবিটি

উপরের ছবিটির সাথে আপনারা অবশ্যই পরিচিত। ছবিটির নাম হচ্ছে ‘Bliss’, যা উইন্ডোজ এক্সপির জন্য একটি স্ট্যান্ডার্ড মানের ওয়ালপেপার। চার্লস ও’ রেয়ার নামক একজন আমেরিকান ফটোগ্রাফার, (যিনি ন্যাশনাল জিওগ্রাফির একজন ফটোগ্রাফার) তিনি তুলেছিলেন। বিশ্বের একটি নামকরা ছবির ভিতরে একটি হিসাবে গ্রহণযোগ্য এবং সর্বাধিক দেখাকৃত একটি ছবি। অনুমান করা হয় ২০০২ (যখন ছবিটি পাবলিশ হয়) থেকে এই পর্যন্ত প্রায় ১ বিলিয়নেরও অধিকবার এই ছবিটি দেখা হয়েছে।

এক সময় এই ফটোগ্রাফার ও’রেয়ার ক্যালিফোর্নিয়ার নাপা ভ্যালি এর কাছে একটি আঙ্গুরের ক্ষেত ছিল সেখানেই ছিল। এই ছবিটি তিনি নিয়েছিলেন ১২/১২১ রোডের পাশ দিয়ে।

এই ছবিটি দেখলে মনে হয় এটা একটি ত্রিমাত্রিক ছবি যাতে কাজ করা হয়েছে। কিন্তু ও’রেয়ার প্রমাণ করে দেয় যে এটা উনার নিজের তোলা ছবি। এবং এতে কোন কাজ করা হয় নাই।

অনুবাদ : এলিন ২০১২

উৎস : Internet 

‘Why This Kolaveri Di’ – আমার ভালোলাগা একটি ভিডিও গান

চমৎকার এক নতুন আইডিয়া নিয়ে গানটি করা হয়েছে। আমার কাছে খারাপ লাগেনি, তাই আমার ব্লগ এ শেয়ার করছি।

এই গানটি ‘তামিল’ সিনেমার গান। সিনেমাটির নাম ‘থ্রি’। ২০১২ সালে সিনেমাটি রিলিজ পাবার কথা আছে। গানটির ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর এবং কম্পোজ করেছিলেন ‘অনিরূধ রবি-চন্দার’।

কিন্তু গানটি অফিসিয়ালি রিলিজ পেয়েছে ২০১১ এর নভেম্বর মাসের ১৬ তারিখ।
ইতিমধ্যে গানটি ইউটিউবে সর্বাধিকবার সার্চের রেকর্ড করে ফেলেছে ইন্ডিয়াতে।

গানটিতে এমন কিছু ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে যা তামিল ভকাবুলারিতে রয়েছে। যেমন : I, you, me, how, why, cow ।

গানটির লিরিক্স খুবই সহজ রাখা হয়েছে। এবং এখানে ব্যবহার করা হয়েছে Tanglish, অর্থাৎ Tamil এবং English এর সংমিশ্রণ।

এই গানটিতে সেই সব অধিকাংশ ছেলেদের কথা বলা হয়েছে যারা প্রেমে ব্যর্থ হয়েছে অথবা, সমস্যায় আছে তাদের গার্ল-ফ্রেন্ডদের নিয়ে।

অফিসিয়াল রিলিজের মাত্র ১ সপ্তাহের ভিতরেই ভিডিওটি ইউটিউবে ১.৩ মিলিয়ন এরও অধিক ভিউয়ার ভিজিট করেছে, ফেইসবুকে ১ মিলিয়নেরও বেশি শেয়ার করা হয়েছে, এবং ৩ নভেম্বর ২০১১ এ এই গানটি ইউটিউবে ১ কোটি হিট ছাড়িয়ে গেছে।


গানটার ভিডিও এর জন্য ডাউনলোড লিংক :

Female Voice

Male Voice

গানটির এমপিথ্রী ডাউনলোড লিংক :

MP3 Link

আমিও প্রতি সপ্তাহে মন্দির যাবো …

নববিবাহিত দম্পতি আলাপ করছে –
স্ত্রী : আমি প্রতি সপ্তাহে বসুন্ধরা যাবো।
স্বামী : কেন ?
স্ত্রী : কেন মানে, মার্কেট করতে!
স্বামী : অ্যা!!
স্ত্রী : আর প্রতি সপ্তাহে একবার কাঁটাবন যাবো।
স্বামী : কাঁটাবন কেন ?
স্ত্রী : কেন আবার, চাইনিজ খেতে।
স্বামী : (বড় বড় চোখ করে) হুম!
স্ত্রী : আর শুনো, প্রতি সপ্তাহে একবার…
স্বামী : আমিও প্রতি সপ্তাহে একবার মন্দির যাবো।
স্ত্রী : মন্দির কেন ?
স্বামী : কেন আবার, ভিক্ষা করতে।

এইটি আমি কবে যেন টিভিতে বিজ্ঞাপনের মাঝে অংশবিশেষ দেখেছিলাম। হঠাৎ মনে পড়ায় নিজের মত করে লিখেছি, তাই গুছিয়ে হয়তো বা লিখতে পারি নাই। এই লেখাটা আমি রংমহল ফোরামে প্রথমে দিয়েছিলাম।

দাবা নিয়ে কিছু কথা

বেশ কিছুদিন যাবত বিভিন্ন কারনে ব্লগে কিছুই লেখা হয় নাই। এছাড়াও অনেক ব্লগ এর জন্ম হয়েছে ইতিমধ্যে। লেখার তেমন কিছুই থাকেন না অনেক সময়। তবুও ব্লগ লিখতে আমার ভালো লাগে। অনেক আগেই নিচের লেখাটি আমি ড্রাফট এ সংরক্ষন করে রেখেছিলাম। পাবলিশ করা হয় নি। ভেবেছিলাম কিছুদিন পর পাবলিশ করবো। সেই কিছুদিন হয়ে গেল কিছু মাস, কিছু বছর। কথা বাড়িয়ে আর লাভ নাই। আসল কথায় আসি। আসল কথাটি দাবা নিয়ে। এখন যদিও দাবা তেমন আগের মত খেলা হয় না বললেই চলে। সময়ের অভাবে বা অস্থিরতার কারনে। …

বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় খেলার তালিকায় দাবা অন্যতম। এটা বুদ্ধির খেলা হিসেবেই বেশি পরিচিত। কারণ দাবা বোর্ড দেখতে ছোটখাটো হলে কী হবে, এই খেলা খেলতে যথেষ্ট বুদ্ধি আর কৌশলের প্রয়োজন। দাবা খেলা একসময় আমি খুব বেশি খেলতাম। আমার খুব প্রিয় খেলা ছিল এটি। আজও প্রিয়, কিন্তু ব্রেইনকে এখন আর আগের মতন একদিকে রাখতে পারি না। দাবা নিয়ে ঘাটাঘাটি করতেও খুব ভালো লাগে। তবে, এখন প্রায় ৫/৭ বছর এরও বেশি হবে দাবা নিয়ে কিছুই করা হয় না। এমনকি দাবাটা যে কে নিয়ে গেছে তাও জানি না।  শুধু ভাঙ্গাচোরা একটা দাবা বোর্ড দেখি টেবিলে পড়ে আছে। এখন হঠাৎ করে সেই দাবা খেলার কথা খুব মনে পড়ছে। আর তাই আমি একটি নতুন বিভাগ খুললাম ‘দাবা‘ নিয়ে।

এখানে দাবার আলোচনার সাথে থাকবে মজার খবর, কথা, খেলা। এমনকি দাবার ধাঁধাঁ। যারা দাবা খেলা বেশ পছন্দ করেন এবং মনে করেন দাবা শেখা দরকার, তাদের এই বিভাগটি শুধু পছন্দই নয়, ভালো কাজেও আসবে আশা করি।

বারকোড আর্ট

বিভিন্ন রকমের আর্ট রয়েছে। কিন্তু বারকোড আর্ট! এটি আর্টের একটি নতুন দিক নিয়ে এসেছে। আমি আগে কখনও এই আর্ট দেখি নাই। সম্পূর্ন ইমেজটিতে শুধুমাত্র বারকোড ব্যবহার করা হয়েছে। দুর থেকে দেখলে বোঝার কোন উপায় নাই এতে বারকোড ছাড়া কিছুই নাই।

bar code art