Category Archives: নিউজ

ফ্রাঙ্ক শেলক, বিশ্বের একজন ভাগ্যবান লোক : যিনি মৃত্যুকে সাতবার এড়িয়ে গিয়ে (!) অবশেষে ১ মিলিয়ন ডলার লটারি জিতে নেন

ফ্রাঙ্ক শেলক নামক একজন ক্রোটিয়ান মিউজিসিয়ান (যিনি একজন মিউজিক টিচারও), ভাগ্য তার জন্য দুর্ভাগ্যের প্রথম রেখাটি আঁকে ১৯৬২ সালে একটি ট্রেন যাত্রায়। ট্রেন যাত্রাটি ছিল সারাজেভো নামক শহর থেকে ডুব্রভনিক নামক শহরে। হঠাৎ করে ট্রেনটি সবাইকে অবাক করে দিয়ে লাফ দিয়ে উঠে এবং বরফের একটি নদীতে গিয়ে পড়ে। এই দুর্ঘটনায় ১৭ জন যাত্রী মারা যায়। শেলক সাঁতার জানতো এবং একটি তীরে উঠে সেইবার কোনমতে বেঁচে যায়। কিন্তু বেঁচে গেলেও তিনি হাইপোথেরমিয়াতে ভোগেন এবং তার একটি হাত ভেঙ্গে যায়।

এক বছর পর তখন একটি প্লেনে তিনি, হঠাৎ করেই সেই প্লেনটির দরজা খুলে যায় এবং উড়ে বাইরে পড়ে যায়। শেলকও সেই দরজার সাথে সাথে প্লেন থেকে বাইরে পড়ে যায়। কিন্তু প্লেন থেকে পড়ে গেলেও শেলক প্রাণে বেঁচে যায়। কারণ শেলকের প্লেন থেকে পড়ে যাওয়ার কিছু সময় পরই প্লেনটি ক্র্যাশ করেছিল। যদিও তাঁর হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল বেশ কিছুদিন।

তারপর একদিন ১৯৬৬ সালে, শেলক বাস এ যাত্রা করছিল, বাসটি হঠাৎ করেই রাস্তা ছেড়ে দিয়ে নদীতে পড়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেলক আবার সেই যাত্রায় প্রাণে বেঁচে যায়। সামান্য আহত হয়েছিল তিনি।

১৯৭০ সালে একদিন তিনি তার প্রাইভেট গাড়ি ড্রাইভ করছিল, সেই গাড়ীতে দূর্ভাগ্যক্রকে আগুন ধরে যায়। কিন্তু  পুরো গাড়িটিতে আগুন ধরে যাওয়ার আগেই তিনি গাড়ি থেকে বেড় হতে সক্ষম হন।

১৯৭৩ সালে, শেলক আরেকদিন অন্য একটি গাড়ি ড্রাইভ করছিল। হঠাৎ করে সেই গাড়িটিতে জ্বালানির ত্রুটির কারণে গ্যাস নির্গত হওয়া শুরু করে যা একসময় আগুন ধরে ফেলে গাড়িটিতে। আবার তিনি আহত হন, কিন্তু প্রাণে বেঁচে যান।

১৯৯৫ সালে একবার তিনি একটি চলন্ত বাসের সাথে ধাক্কা খান। সেইবারও তিনি সামান্য আহত হন ঠিকই কিন্তু প্রাণে বেঁচে যান।

সবশেষে একবার ১৯৯৬ সালে তিনি গাড়ি ড্রাইভ করছিলেন পাহাড়ি এলাকায়। তিনি যখন গাড়িটি নিয়ে বাঁকিয়ে আসবেন এমন সময় সেখানে একটি চলন্ত ট্রাক দেখতে পান, যা তার দিকেই আসছিল। তিনি গাড়ি থেকে লাফিয়ে পড়তে সক্ষম হন এবং দেখেন তার গাড়িটিও লাফিয়ে উঠে তার থেকে প্রায় ৩০০ ফিট উপরে।

পরবর্তীতে শেলক ২০০৩ সালে তার জীবনে প্রথমবারের মত একটি লটারির টিকেট কিনে আনেন। তিনি সেইবার লটারিটি জিতেছিল যা ছিল ১ মিলিয়ন ডলার এর লটারি।

তাহলে এই ব্যক্তিটিকে পৃথিবীর সবথেকে ভাগ্যবান বলা কি ভুল হবে ?

ডিভোর্সড হওয়া এক মহীলা তার Wedding Ring মহাকাশে পাঠালো

বিবাহ-বিচ্ছেদ (ডিভোর্স) হওয়ার পর রেবেকা গিব্‌স নামক এক মহিলা  তার wedding ring (যে রিং বিয়ের সময় স্বামী তাকে পরিয়েছিল) মহাকাশে প্রেরণ করে দিল, তাও আবার নিজের ঘরে তৈরি রকেট দিয়ে।


No, this isn’t the actual ring-bearing rocket.
(Credit: msoltan/YouTube Screenshot: Chris Matyszczyk/CNET)

বিশ্বের সর্বাধিক দেখাকৃত যে ছবিটি

উপরের ছবিটির সাথে আপনারা অবশ্যই পরিচিত। ছবিটির নাম হচ্ছে ‘Bliss’, যা উইন্ডোজ এক্সপির জন্য একটি স্ট্যান্ডার্ড মানের ওয়ালপেপার। চার্লস ও’ রেয়ার নামক একজন আমেরিকান ফটোগ্রাফার, (যিনি ন্যাশনাল জিওগ্রাফির একজন ফটোগ্রাফার) তিনি তুলেছিলেন। বিশ্বের একটি নামকরা ছবির ভিতরে একটি হিসাবে গ্রহণযোগ্য এবং সর্বাধিক দেখাকৃত একটি ছবি। অনুমান করা হয় ২০০২ (যখন ছবিটি পাবলিশ হয়) থেকে এই পর্যন্ত প্রায় ১ বিলিয়নেরও অধিকবার এই ছবিটি দেখা হয়েছে।

এক সময় এই ফটোগ্রাফার ও’রেয়ার ক্যালিফোর্নিয়ার নাপা ভ্যালি এর কাছে একটি আঙ্গুরের ক্ষেত ছিল সেখানেই ছিল। এই ছবিটি তিনি নিয়েছিলেন ১২/১২১ রোডের পাশ দিয়ে।

এই ছবিটি দেখলে মনে হয় এটা একটি ত্রিমাত্রিক ছবি যাতে কাজ করা হয়েছে। কিন্তু ও’রেয়ার প্রমাণ করে দেয় যে এটা উনার নিজের তোলা ছবি। এবং এতে কোন কাজ করা হয় নাই।

অনুবাদ : এলিন ২০১২

উৎস : Internet 

বাংলাদেশের টাকা পূর্বে কেমন ছিল

১৯৭২ সালের বালাদেশের ‌১ টাকার নোটের সামনের দিক

ডিআইআইটির নির্বাহী পরিচালকের আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশগ্রহণ

ডেফোডিল ইনস্টিটিউট অব আইটি’র (ডিআইআইটি) নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ নূরুজ্জামান গত ২৪-২৬ সেপ্টেম্বর জার্মানিতে অনুষ্ঠিত ১১তম ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন কোয়ালিটি ইঞ্জিনিয়ারিং ইন সফটওয়্যার টেকনোলজিতে অংশগ্রহন করেন। সম্মেলনটি জার্মানির বার্লিন এ পোস্টডেম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। মোহাম্মদ নূরুজ্জামান কনকোয়েস্ট-২০০৮ প্রোগ্রাম কমিটির একজন সদস্য। তিনি উক্ত সম্মেলনে সফটওয়্যার টেস্টিং সেশনে সভাপতিত্ব করেন। সম্মেলনে বিশ্বের ১৬ টি দেশের প্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ মানসম্পন্ন কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত ৬০ টি বিষয় আলোচিত হয়। সম্মেলনে সফটওয়্যার এজি, জার্মানি, মেট্রিক্স গেøাবাল ইসরাইল, ডয়েচ টেলিকম এজি, জার্মানি, ইউনির্ভাসিটি অব কেলিফোর্নিয়া, সান দিয়াগো ইউএসএ, ইউনির্ভাসিটি অব এপ্লাইড সাইন্স ব্রিমেন, জার্মানি এর উর্ধ্বতন গবেষক ও অধ্যাপক গন বিভিন্ন সেশনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন। উলেøখ্য নূরুজ্জামান বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি হয়ে উক্ত সম্মেলনে অংশগ্রহন করেন।

ভিজিট করুন :
ডিআইইটি ওয়েবসাইট

উৎস : অনলাইন নিউজ ২০০৮