Category Archives: সাহিত্য-সম্ভার/সঙ্গীত

সাহিত্যে নোবেল জিতলেন ফ্রান্সের লো ক্লেজিও

সাহিত্যে এ বছর নোবেল পুরস্কার জিতেছেন খ্যাতনামা ফরাসি লেখক জ্যঁ-মারি গুস্তাভ লো ক্লেজিও। সুইডেনের নোবেল কমিটি বৃহস্পতিবার এ ঘোষণা দিয়েছে। ১৯৮৫ সালের পর এই প্রথম কোনো ফরাসি লেখক সাহিত্যে নোবেল পেলেন।

এর আগে ফ্রান্সে রাজনৈতিক আশ্রয়প্রাপ্ত ও পরে ফরাসি নাগরিকত্ব গ্রহণকারী চীনা লেখক গাও জিংজিয়ান ২০০০ সালে এবং ফ্রান্সে জন্ম নেয়া সাহিত্যিক কো¬ড সিমোন ১৯৮৫ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পান। মজার ব্যাপার হলো, ১৯০১ সালে সাহিত্যে প্রথম নোবেল পুরস্কারটিও পেয়েছিলেন একজন ফরাসি কবি।

ল্যে ক্লেজিও পুরস্কার হিসেবে এক কোটি সুইডিশ ক্রোন (১৪ লাখ ডলার) পাবেন। অ্যাডভেঞ্চারধর্মী উপন্যাস, প্রবন্ধ ও শিশু সাহিত্যে অবদানের জন্য লো ক্লেজিওকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

১৯৪০ সালে জন্ম নেয়া ল্যে ক্লেজিওর প্রথম উপন্যাস ‘ল্য প্রসে-ভেরবাল’ প্রকাশিত হয় ১৯৬৩ সালে। ছোটবেলায় পরিবারের সঙ্গে নাইজেরিয়ায় চলে যান ক্লেজিও। নাইজেরিয়ায় যাওয়ার ভ্রমণ অভিজ্ঞতা নিয়ে তার প্রথম রচনা ছিলো ‘উন লং ভয়াজ’ এবং ‘ওরাডি নোয়ার’।

নোবেল কমিটির এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘লো ক্লেজিও নতুন ধারার কাব্যধর্মী অ্যাডভেঞ্চার রচয়িতা এবং সভ্যতার অগ্রযাত্রার অন্তরালে মানবিকতাকে খুঁজে বের করার পথের অভিযাত্রী।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘নিজস্ব রচনার ভাষাকে তিনি সাধারণ জীবনের স্তর থেকে ওপরে তোলার চেষ্টা করেছেন এবং এর মাধ্যমে একটি অত্যাবশ্যকীয় বাস্তবতার ছোঁয়া দিতে চেয়েছেন পাঠকদের। লো ক্লেজিওর সাহিত্য মানব জীবনের শৈশব জগৎ ও তার পরিবারের ইতিহাসের মধ্যে প্রসারিত হয়েছে।’

লো ক্লেজিওর রচনা সম্পর্কে সুইডিশ একাডেমির হোরাস এঙ্গদাল বলেন, তার লেখায় এক ধরনের ‘কসমোপলিটান’ ভাব রয়েছে। জাতে ফরাসি হলেও একজন বিশ্ব নাগরিক। যার রয়েছে যাযাবর বা ভ্রমণ পিয়াসী মানসিকতা।

লো ক্লেজিওসহ এ পর্যন্ত ১০৫ জন সাহিত্যিক নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন।

ডিনামাইট এর আবিস্কারক আলফ্রেড নোবেলের দান করা তহবিল দিয়ে ১৯০১ সাল থেকে পদার্থ, রসায়ন, চিকিৎসা, শান্তি ও সাহিত্য শাখায় নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়। এছাড়া, ১৯৬৮ সাল থেকে সুইডেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু করে।

উৎস : বিডিনিউজ ২০০৮

‘সায়ান’ – বাংলাগানের ভবিষ্যত উজ্জল তারকা এবং আমার প্রিয় একজন

আমি সহজে খুব একটা টেলিভিশন দেখিনা। আর যখন দেখি তখন শুধুই চ্যানেল পরিবর্তনের খেলায় মেতে থাকি। কিছুটু অধৈর্যভাবেই টিভির সামনে বসে থাকি। কিন্তু হঠাৎ করে গতকাল ‘বিটিভি’ ক্রস করে যাবার সময় ‘সায়ানকে’ দেখি। আর চ্যানেল পরিবর্তন করা হলো না। একদম ভিন্নধর্মী এক মানুষ। রহস্যময় ও খুবই আকর্ষনীয় লাগল আমার কাছে। বিশেষ করে তার লেখাগুলো খুবই ভালো লাগল। তিনি কবিতা ও গান লিখেন, সুর করেন, নিজেই সেটা গান এবং গীটার বাজিয়ে সুর তুলেন। দারুন প্রতিভা। আমি তখনই মনে মনে ঠিক করলাম তাকে নিয়ে কিছু একটা নতুন পোষ্ট দেবো। ‘সামহয়্যারের’ সহযোগিতায় পোষ্টটি সম্পূর্ণ করতে পেরে ভালো লাগছে।…

‘সোনিয়ে যে তেরে নাল’ চুরি করা গান

মুক্তিপ্রাপ্ত ‘কর্জ’-এর হিট গান ‘সোনিয়ে যে তেরে নাল’ নিয়ে ঝামেলায় পড়েছেন গায়ক হিমেশ রেশমিয়া। এক পাঞ্জাবি গায়ক কুলবিন্দর ক্যালি এটিকে তার গান থেকে নকল করে তৈরি করা বলে দাবি করে হিমেশ ও সঙ্গীত পরিচালক সামিরের বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশও পাঠিয়েছেন। গান চুরি করার দায়ে ৫ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণও দাবি করেছেন প্রবাসী পাঞ্জাবি গায়ক। পাঞ্জাবি গায়ক দাবি করেন, চার বছর আগে তিনি একটি গান প্রকাশ করেন। সেই গানটি নকল করে হিমেশ কর্জের গানটি দাঁড় করিয়েছেন। কুলবিন্দর বলেন, ‘যে গানটি হিমেশ গেয়েছেন সেটি আসলে আমার গান। আমার ‘শাম ওয়ালি গাড্ডি’ ক্যাসেটে গানটি রয়েছে। ৪ বছর আগে আমি ওই ক্যাসেটটি প্রকাশ করি। আমার ক্যাসেট থেকেই হিমেশ গানটি চুরি করেছে। এ প্রসঙ্গে রেশমিয়া বলেন, ‘আমি কেবল গানটি গেয়েছি। ‘এক হসিনা থি’ ও ‘সোনিয়ে যে তেরে নাল’ দুটি গানই মিস্টার ভ‚ষণ কুমারের লেখা। আমরা তার কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছি।’

উৎস : যুগান্তর ২০০৮

আশা ভোঁসলে সম্পর্কে আপনি যা জানেন না

হিন্দি চলচ্চিত্রের বিখ্যাত শিল্পী আশা ভোসলের জন্মদিন পালিত হলো ৮ সেপ্টেম্বর। ১৯৩৩ সালের এই দিনে মহারাষ্ট্রে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। বলিউডের অন্যতম এই গায়িকার গানের ক্যারিয়ার প্রায় ৬ দশক জুড়ে বিস্তৃত। এযাবৎ ৯৫০টিরও বেশি ছবিতে কন্ঠ দিয়েছেন তিনি, গেয়েছেন ১২ হাজারেরও বেশি গান। প্রয়াত আর ডি বর্মনের সঙ্গে পরিণয় সূত্রে আবদ্ধ হন তিনি ১৯৭০ এর দশকে।

আইটি ছড়া

উৎস : jrisaika.multiply.com/