Category Archives: অন্যান্য

বর্ণমালা – বাংলা সাহিত্য নিয়ে একটি ভাল সাইট

কিছুদিন আগে আমার নজরে একটি ভালো মানের বাংলা সাইট পড়লো। আমার খুবই ভালো লাগল এই সাইটটি। বাংলাতে করা সম্পূর্ণ সাইটি। এই সাইটটিতে রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছোটগল্পের সংগ্রহ, জীবনানন্দের কবিতা থেকে শুরু করে আরো অনেক লেখক/লেখিকাদের লেখা ছড়া, কবিতা, গল্প, উপন্যাস, ছোটগল্পের কালেকশান ইত্যাদি। এছাড়াও এই সাইট থেকে লেখক/লেখিকাদের সম্পর্কে জানতে পারবেন। আমার ভালো লাগলো তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম। আশা করি আপনাদেরও ভালো লাগবে।

ভিজিট করুন :
http://www.barnamala.org/

সাইটটি থেকে নেয়া :

সুকুমার রায় এর ছড়া

খিচুড়ি

হাঁস ছিল, সজারু, (ব্যাকরণ মানি না),
হয়ে গেলে “হাঁসজারু” কেমনে তা জানি না।
বক কহে কচ্ছপে “বাহবা কি ফুর্তি!
অতি খাসা আমাদের বকচ্ছপ মূর্তি।”
টিয়ামুখো গিরগিটি মনে ভারি শঙ্কা
পোকা ছেড়ে শেষে কিগো খাবে কাঁচা লঙ্কা?
ছাগলের পেটে ছিল না জানি কি ফন্দি,
চাপিল বিছার ঘাড়ে, ধড়ে মুড়ো সন্ধি!
জিরাফের সাধ নাই মাঠে ঘাটে ঘুরিতে,
ফড়িঙের ঢং ধরি, সেও চায় উড়িতে।
গরু বলে, “আমারেও ধরিলো কি ও রোগে?
মোর পিছে লাগে কেন হতভাগা মোরগে?”
হাতিমির দশা দেখ , তিমি ভাবে জলে যাই,
হাতি বলে, “এই বেলা জঙ্গলে চল ভাই”।
সিংহের শিং নেই, এই তার কষ্ট
হরিণের সাথে মিলে শিং হল পষ্ট।

লেখা : এলিন (এডমিন) ২০০৮

সাহিত্যে নোবেল জিতলেন ফ্রান্সের লো ক্লেজিও

সাহিত্যে এ বছর নোবেল পুরস্কার জিতেছেন খ্যাতনামা ফরাসি লেখক জ্যঁ-মারি গুস্তাভ লো ক্লেজিও। সুইডেনের নোবেল কমিটি বৃহস্পতিবার এ ঘোষণা দিয়েছে। ১৯৮৫ সালের পর এই প্রথম কোনো ফরাসি লেখক সাহিত্যে নোবেল পেলেন।

এর আগে ফ্রান্সে রাজনৈতিক আশ্রয়প্রাপ্ত ও পরে ফরাসি নাগরিকত্ব গ্রহণকারী চীনা লেখক গাও জিংজিয়ান ২০০০ সালে এবং ফ্রান্সে জন্ম নেয়া সাহিত্যিক কো¬ড সিমোন ১৯৮৫ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পান। মজার ব্যাপার হলো, ১৯০১ সালে সাহিত্যে প্রথম নোবেল পুরস্কারটিও পেয়েছিলেন একজন ফরাসি কবি।

ল্যে ক্লেজিও পুরস্কার হিসেবে এক কোটি সুইডিশ ক্রোন (১৪ লাখ ডলার) পাবেন। অ্যাডভেঞ্চারধর্মী উপন্যাস, প্রবন্ধ ও শিশু সাহিত্যে অবদানের জন্য লো ক্লেজিওকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

১৯৪০ সালে জন্ম নেয়া ল্যে ক্লেজিওর প্রথম উপন্যাস ‘ল্য প্রসে-ভেরবাল’ প্রকাশিত হয় ১৯৬৩ সালে। ছোটবেলায় পরিবারের সঙ্গে নাইজেরিয়ায় চলে যান ক্লেজিও। নাইজেরিয়ায় যাওয়ার ভ্রমণ অভিজ্ঞতা নিয়ে তার প্রথম রচনা ছিলো ‘উন লং ভয়াজ’ এবং ‘ওরাডি নোয়ার’।

নোবেল কমিটির এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘লো ক্লেজিও নতুন ধারার কাব্যধর্মী অ্যাডভেঞ্চার রচয়িতা এবং সভ্যতার অগ্রযাত্রার অন্তরালে মানবিকতাকে খুঁজে বের করার পথের অভিযাত্রী।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘নিজস্ব রচনার ভাষাকে তিনি সাধারণ জীবনের স্তর থেকে ওপরে তোলার চেষ্টা করেছেন এবং এর মাধ্যমে একটি অত্যাবশ্যকীয় বাস্তবতার ছোঁয়া দিতে চেয়েছেন পাঠকদের। লো ক্লেজিওর সাহিত্য মানব জীবনের শৈশব জগৎ ও তার পরিবারের ইতিহাসের মধ্যে প্রসারিত হয়েছে।’

লো ক্লেজিওর রচনা সম্পর্কে সুইডিশ একাডেমির হোরাস এঙ্গদাল বলেন, তার লেখায় এক ধরনের ‘কসমোপলিটান’ ভাব রয়েছে। জাতে ফরাসি হলেও একজন বিশ্ব নাগরিক। যার রয়েছে যাযাবর বা ভ্রমণ পিয়াসী মানসিকতা।

লো ক্লেজিওসহ এ পর্যন্ত ১০৫ জন সাহিত্যিক নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন।

ডিনামাইট এর আবিস্কারক আলফ্রেড নোবেলের দান করা তহবিল দিয়ে ১৯০১ সাল থেকে পদার্থ, রসায়ন, চিকিৎসা, শান্তি ও সাহিত্য শাখায় নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়। এছাড়া, ১৯৬৮ সাল থেকে সুইডেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া শুরু করে।

উৎস : বিডিনিউজ ২০০৮