Category Archives: আমার প্রচেষ্টা

অদৃশ্য শক্তি

তোমার আমার মাঝে এক

অদৃশ্য বাঁধন গড়ে উঠেছে;

বহুকাল ধরে,

সময়ের স্রোতে –

ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বহু দুর

আবার কাছে টেনে আনছে –

তার আপন গতিতে।

অনুভূতিহীন

কষ্ট আমায় আর কাঁদাতে পারেনা !

সুখ দিতে পারেনা আনন্দ।

ফুলের মাঝে আর সেই ঘ্রাণ পাই না।

পাইনা, বৃষ্টির মাঝে ছন্দ !

বেলিফুলে বাঁধা তোমার চুলে

পাইনা খুঁজে ভিন্নতা;

তোমার হৃদয়ে পাইনা আর সেই-

আমার হৃদয়ের শূন্যতা !

নির্জন পথে পাই না খুঁজে আর-

চেনা সেই সুখের দেখা;

গভীর রাতে চাঁদের সাথে-

তবু আমি যেন একা !

ঝিঁঝিঁর ডাকে আনমনে আর-

নেই না তাদের পিছু;

আমি যেন আর পৃথিবীর নই-

না, পৃথিবীর আমার কিছু।

কোন কিছুতেই পাই না আর সেই-

পুরনো অনুভূতি;

আমি যেন এক অনুভূতিহীন-

চলমান কোন গতি !

-এলিন (০৯/০১/২০১২)

“মা, বলতে পারো- আমি কেন একা ?”

মা, বলতে পারো-

আমি কেন এমন ?

কেন আমার জীবনটা-

বটবৃক্ষের মতন ?

সব কিছু সইতে হয়

কইতে হয় মনে,

চুপিচুপি, চুপিচুপি

“তবুও বেঁচে আছি”

প্রকৃতির নিষ্ঠুরতা গ্রাস করে নিচ্ছে

ধীরে ধীরে আমার সর্বস্ব !

গ্রাস করে নিচ্ছে সকল মায়ার বাঁধন !

সংকুচিত হয়ে পড়ছে কৌতূহলে পরিধি।

ছিনিয়ে নিচ্ছে সরলতা-মাখা সেই ছোট্ট মন;

উদ্দীপনায় ভরা হৃদয়ের কম্পন।

ধ্বংস করে দিচ্ছে দৃষ্টির সীমানা।

ম্লান হয়ে যাচ্ছে সমস্ত আনন্দ, সমস্ত বেদনা।

তবু বেঁচে আছি !

বেঁচে আছি এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে !

বেঁচে আছি, বেঁচে আছি – প্রকৃতির সাথে।

আর তো কিছু করার নাই !

শুধু বেঁচে আছি, বেঁচে আছি-

বাঁচতে হবে তাই।

– এলিন (২০/০৩/২০১২ ইং)

কথা দিয়েছিলে

কথা দিয়েছিলে –
নিয়ে যাবে দুর পর্বতের চূড়ায়।
কথা দিয়েছিলে –
নিয়ে যাবে বিশুদ্ধ সমুদ্রের বিশালতায়;
স্নান করাবে জ্যোৎস্নার মলিনতায়;
বকুলের নির্জাসে মাখাবে হৃদয়।
দুর করে দেবে সমস্ত কষ্ট, সমস্ত ভয়।
কথা দিয়েছিলে !

কথা দিয়েছিলে –
মুছে দেবে দু’চোখের সকল অশ্রু,
কাজলে ভরাবে এ’চোখ, তোমারই চোখের ইশারায়।
দুর করে দেবে হৃদয়ের তিক্ততা।
কথা দিয়েছিলে !

কথা দিয়েছিলে –
গড়ে দেবে আমায়, বিশাল পূর্ণতা;
তোমার হৃদয়ে জমে থাকা যত শূন্যতায়!
কথা দিয়েছিলে !
তুমি কথা দিয়েছিলে !

– এলিন (০৫/০৫/২০১২)