Category Archives: কম্পিউটার

ফেইসবুক হতে ভিডিও ডাউন-লোড

অনেকেই আমরা ফেইসবুকে ভিডিও শেয়ার করে থাকি। ফেইসবুকে অনেক ইন্টারেস্টিং ভিডিও প্রায়ই আমাদের চোখে পড়ে। আমরা ভিডিওগুলো প্লে করতে পারলেও বেশিরভাগ ভিডিও ডাউন-লোড করতে পারি না, কারণ ভিডিও ডাউন-লোড করার জন্য ফেইসবুকে কোন ডাইরেক্ট অপশন নাই। এক্ষেত্রে যেভাবে আমরা ফেইসবুক হতে ভিডিও ডাউন-লোড করতে পারি তা হলও, অন্য কোন সাইটের সাহায্য নিয়ে ভিডিওটি ডাউন-লোড করা।

আমি আজ দেখাবো সেই রকমই একটি সাইটের নাম ও কি করে ফেইসবুক হতে ভিডিও ডাউন-লোড করবেন সেই পদ্ধতি :

১. প্রথমে, ফেইসবুক হতে একটি ভিডিও পছন্দ করুন, যা ডাউন-লোড করতে চান।

২. ভিডিও এর জন্য লিংকটি কপি করুন। লিংক কপি করতে, মাউসের ডান পাশের বোতামটি সেই ভিডিওটিতে নিয়ে ক্লিক করুন এবং Copy link address অথবা, Copy link location লেখাটিতে ক্লিক করুন।

Download Facebook Video

‘এলিনের ভুবন’ ব্লগ এখন এন্ড্রয়েড ফোনে …

অনেক দিন ধরে কোন পোস্ট করা হয় নি ব্যস্ততার বেড়াজালে আটকে ছিলাম এবং এখনও অনেকটা রয়েছি। আজ ভাবলাম একটি পোস্ট করি কারণ আমার এই ব্লগের জন্য কোন মতে একটি এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশনডেভেলপ করেছি সেটা ব্লগে যুক্ত করে দেবো।

Splash Screen

Splash Screen

এ্যাপটা সাদামাটা। এই এ্যাপটির মুল উদ্দেশ্য ছিল এন্ড্রয়েড ডেভেলপমেন্ট এর চর্চা করা। তাই অনেক কিছুতেই তেমন দৃষ্টি দেয়া হয়নি। শুধুমাত্র আমার ব্লগের সর্বশেষ আটটি পোস্টের আংশিক দেখাবে এবং সেই সাথে টুকটাক বাড়তি কিছু। যেমন : আমার সাথে কন্টাক্ট করা (ফোনের কল, এসএমএস বা ইমেইলে)। সেখানে ট্যাব করলেই সরাসরি সেই ফোন থেকেই কলটি আমার কাছে চলে আসবে নাম্বার টাইপ করতে হবে না। এসএমএস এবং ইমেইলও একই ভাবে। যদিও ইমেইল পার্টটিতে সমস্যা রয়েছে যা নিয়ে এখন বসতে ইচ্ছে করছে না।

ওয়াও !! ‘ইউটিউব’ iS BacK টু mE …. !! :)

ইউটিউব’ কমবেশি সকলের কাছেই অনেক প্রিয়। বাংলাদেশে এই ‘ইউটিউব‘ বন্ধ করে দেবার পর কার কাছে কেমন লেগেছে জানি না, আমার কাছে খুবই খারাপ লেগেছে। কারণ, আমরা যারা ইউটিউব ব্যবহার করে থাকি শুধু মাত্র ভালো কোয়ালিটির গানের জন্য। আর যে মুভিটির জন্য একে বন্ধ করে রাখা হয়েছিল সেই মুভি আমি এমনিতেই দেখতাম না। আর যারা দেখতে চায় তারা ইউটিউব বন্ধ হবার পরেও দেখতে পেরেছে মুভিটা। তো, কি লাভ হল !

youtube

যা হোক। আজ অনেক ভালো লাগছে। এতদিন ট্রাই করেছিলাম নেটে দেয়া কিছু কিছু নিয়মে ইউটিউব কে চালাতে। কিন্তু আমি যেমন ভাবে চালাতে চাই তেমনিভাবে পারছিলাম না।

মজিলা ফায়ারফক্স : ‘History Close Tab’ ডিজেবল করা

আমরা যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করি, তাদের কাছে এই মজিলা ফায়ারফক্স নামটি খুবই পরিচিত। এটি একটি ব্রাউজার, যা দিয়ে আমরা ওয়েবসাইট ব্রাউজ করতে পারি।

মজিলা ফায়ারফক্স এর একটি বিশেষ সুবিধা হল একসাথে একাধিক ট্যাব এর ব্যবহার, যা আমাদের একাধিক ওয়েবসাইটকে একটি ব্রাউজারের ভিতরেই সীমাবদ্ধ রাখতে সাহায্য করে।

যখন যেই ট্যাব এর প্রয়োজন শেষ হয়ে যায় আমরা সেই ট্যাবটি ক্লোজ করে ফেলি। কিন্তু ক্লোজ করে ফেলা সর্বশেষ ১০ টি ট্যাব এর তথ্য সেইভ রয়ে যায় এই ব্রাউজারেই। এর সুবিধা হল, যদি কেউ ভুলে কোন ট্যাব ক্লোজ করে ফেলে তাহলে সেটাকে আবার ফিরিয়ে আনতে পারে।

কিন্তু কেউ যদি চায় তার সকল ভিজিট করা ওয়েবসাইটের তথ্য সেইভ থাকবেনা এবং সে ক্যাশ, হিস্টোরি ইত্যাদি ক্লিয়ার করে ফেলে তারপরেও অনেক সময় দেখা যায় ক্লোজ করা সর্বশেষ ১০ টি ট্যাব ঠিকই রয়ে যায়। এবং কোন মতেই সেটা ক্লিয়ার করা যায় না।

আবার অনেকে মনে করতে পারে এই সুবিধাটি তার প্রয়োজন নেই। উপকারের থেকে বরং তাকে অপকার করছে এটা। তাহলে সে ইচ্ছে করলেই মজিলা ফায়ারফক্স এর এই সুবিধাটি ডিজেবল বা বন্ধ করে রেখে দিতে পারে। এতে করে তার আর ক্লোজ করে ফেলা কোন সাইট সেইভ থাকবে না। একেই বলে ‘Disable History Close Tab’।

অনেক কথা হল এখন আসল  কাজে আসি :

১. মজিলা ফায়ারফক্সের এড্রেস-বারে (যেখানে ওয়েবসাইটের ওয়েব এড্রেস টাইপ করা হয়) টাইপ করুন : about:config

উইন্ডোজ এর ‘Send To’ মেনু নিজের পছন্দ মত করে সাজান

উইন্ডোজ ব্যবহারকারী প্রায়ই সকলেই উইন্ডোজের এই ‘Send to’ মেনুর সাথে পরিচিত। যে কোন ফাইল বা ফোল্ডারে মাউসের ডান বোতাম ক্লিক করলেই আমরা এই মেনুটিকে দেখতে পাই। এই মেনুর দ্বারা আমরা যে কোন ফাইল/ফোল্ডারকে পেন-ড্রাইভে বা অন্য কোন স্থানে খুব সহজেই কপি করে নিতে পারি। এছাড়াও ডেস্কটপে শর্টকাট তৈরি করতে পারি, কমপ্রেস করে অন্য কোথাও সহজেই কপি করে রেখে দিতে পারি, সিডি/ডিভিডিতে রাইটও করতে পারি।

send-to-menu

ইচ্ছে করলেই আমরা এই মেনুটিকে নিজের পছন্দমত সাজিয়ে নিতে পারি। যেমন, মনে করুন আপনার ইচ্ছে আপনি বিভিন্ন ড্রাইভ থেকে আপনি ফাইল/ফোল্ডার একটি ফোল্ডারে কপি করে নিবেন পরে সেই ফোল্ডারটিকে সিডিতে রাইট করবেন বা ফোনে ভরে রাখবেন। অথবা, আপনি যখন আপনার ফোনে গান নিতে চান, তখন এই ‘Send To’ মেনু আপনাকে অনেক সাহায্য করবে।

নরমালি সেন্ড-টু মেনু ব্যবহার কে সরাসরি গানগুলি আপনার ফোনে নিলে সেই গানগুলি পছন্দমত ফোল্ডারে গিয়ে পড়বে না এবং ফোনের অন্যান্য ফাইল/ফোল্ডার এর সাথে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যাবে।

তাই যদি আপনি প্রথমেই সকল ফাইল/ফোল্ডারকে একটি ফোল্ডারে সহজেই সাজিয়ে নিতে পারেন আপনার জন্য কাজটি করা ঝামেলাপূর্ণ মনে হবে না।

তাহলে আসুন যেনে নেই কি করে উইন্ডোজের ‘Send To’ মেনু নিজের পছন্দমত সাজাতে হয়।